মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রকল্প

ইউনিয়নের বেকার জনগোষ্ঠীর জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি গ্রামীণ অবকাঠামো নির্মাণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য আমরা কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা-কাবিটা) কর্মসূচীর আওতায় ২০১১-২০১২ অর্থবছরে সাধারণ খাতে ২০ মেট্টিক টন ও বিশেষ খাতে ৩৬ মোট্রক টন খাদ্যশস্য বরাদ্দ হয় এবং ৯ টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়। ২০১১-১২ অর্থ বছরে আমরা টিআর কমসূচীর আওতায় সাধারন খাতে ২২ মেঃ টন বিশেষ খাতে ৩১ মেঃ টন খাদ্য শষ্য বরাদ্দ পেয়েছি এবং মোট ২৩ প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়। টিআর কর্মসূচীর আওতায় সাধারণ খাতে ২৩ মেঃ টন ও বিশেষ খাতে ৩৬.৫০০ মেঃ টন খাদ্য শষ্য বরাদ্দ দেয়া হয় এবং ৩০ টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়।  আমি আগামি ২০১৩-২০১৪ অর্থ বছরে উল্লিখিত কর্মসূচীর আওতায় সমপরিমান খাদ্যশস্য বরাদ্দ দেয়ার প্রস্তাব করছি। ইউনিয়নের ভূমি হস্তান্তর খাত ১% থেকে প্রাপ্ত অর্থ দ্বারা ২০১২-১৩ অর্থ বছরে মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের কর্মচারিদের বেতন/ভাতা বাবদ ব্যয় ১ লক্ষ ৭৭ হাজার ৮ শত ৭৫ টাকা। মাহিলাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন জনগুরুত্ত্বপূর্ন কালভার্ট ও সড়কে আরসিসি প্যালাসাইটিং নির্মান বাবদ ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ব্যয়ে ৪ টি প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়। মাহিলাড়া ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রের জন্য ১ লক্ষ টাকা ব্যয়ে একটি ফটোকপিআর মেশিন ক্রয় করা হয়।  গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন দারিদ্র্য বিমোচন ও পল্লী উন্নয়নের লক্ষ্যে নানাবিধ নতুন ও যুগান্তকারী কর্মসূচি ’’ একটি বাড়ি একটি খামার ’’ প্রকল্প আমরা সফলভাবে বাস্তবায়ন করছি। মাহিলাড়া ইউনিয়নে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের আওতায় ইউনিয়নের ৯ টি গ্রামের মোট ৯ টি সমিতির মাধ্যমে প্রায় ৫০০ পরিবার কে বিভিন্ন ধরনের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করেছি। উদ্দ্যোগ নেয়া হয়েছে তাদের সঞ্চয়মূখী করার। আমাদের ইউনিয়নে ২০১২ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের জুন পর্যন্ত এই ৫০০ সদস্যদের সঞ্চয় জমা আছে ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা, সরকার কর্তৃক সমিতির অনুকুলে বোনাস জমা  আছে ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। মোট জমার পরিমান ২৭ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা। ঘুর্নায়মান ঋণ তহবিল প্রদান সরকার কর্তৃক ২৩ লক্ষ ৮৮ হাজার। মোট জমা  ৫১ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকা। মোট ঋণ প্রদান ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা। ঋণ আদায় ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা। ২০১৩-১৪ অর্থ বছরে মাহিলাড়া ইউনিয়নে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের আওতায় অবশিষ্ট গ্রাম গুলোও নেয়া হবে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter